এইমাত্র পাওয়া খবর: 
গাজীপুরের টঙ্গী ও শ্রীপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ৪, আহত ২
গাজীপুরের টঙ্গী ও শ্রীপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ৪, আহত ২
চাটখিলে ভয়াবহ অগ্নিকান্ডে ৪ টি ঘর ভস্মিভুত
সবকিছুতে যোগসাজশ খোঁজেন কেন, প্রশ্ন কাদেরের
প্রাচীন কোরআনের পান্ডুলিপি আর কিতাবের জাদুঘরে
চাশতের নামাজ মানুষের যে উপকারে আসে
বিজ্ঞাপন: 
ইন্টারনেটের জগতে বাচ্চাদের ভালো জিনিস শেখার কোনো শেষ নেই কিন্তু প্রায়ই তারা সম্মুখীন হয় অযাচিত কন্টেন্টের যা তাদের মানসিক বিকাশে ব্যাঘাত ঘটাতে পারে
ইন্টারনেটের জগতে বাচ্চাদের ভালো জিনিস শেখার কোনো শেষ নেই কিন্তু প্রায়ই তারা সম্মুখীন হয় অযাচিত কন্টেন্টের যা তাদের মানসিক বিকাশে ব্যাঘাত ঘটাতে পারে
ইন্টারনেটের জগতে বাচ্চাদের ভালো জিনিস শেখার কোনো শেষ নেই কিন্তু প্রায়ই তারা সম্মুখীন হয় অযাচিত কন্টেন্টের যা তাদের মানসিক বিকাশে ব্যাঘাত ঘটাতে পারে
ইন্টারনেটের জগতে বাচ্চাদের ভালো জিনিস শেখার কোনো শেষ নেই কিন্তু প্রায়ই তারা সম্মুখীন হয় অযাচিত কন্টেন্টের যা তাদের মানসিক বিকাশে ব্যাঘাত ঘটাতে পারে
ইন্টারনেটের জগতে বাচ্চাদের ভালো জিনিস শেখার কোনো শেষ নেই কিন্তু প্রায়ই তারা সম্মুখীন হয় অযাচিত কন্টেন্টের যা তাদের মানসিক বিকাশে ব্যাঘাত ঘটাতে পারে
ইন্টারনেটের জগতে বাচ্চাদের ভালো জিনিস শেখার কোনো শেষ নেই কিন্তু প্রায়ই তারা সম্মুখীন হয় অযাচিত কন্টেন্টের যা তাদের মানসিক বিকাশে ব্যাঘাত ঘটাতে পারে
ইন্টারনেটের জগতে বাচ্চাদের ভালো জিনিস শেখার কোনো শেষ নেই কিন্তু প্রায়ই তারা সম্মুখীন হয় অযাচিত কন্টেন্টের যা তাদের মানসিক বিকাশে ব্যাঘাত ঘটাতে পারে
circulation manager.
শিরোনাম: 
আমার সোনার বাংলা আমি তোমায় ভালবাসি।
channeltoday.com
Advertising Rubel
| ২৫  জানুয়ারি - ২০১৮
বিজ্ঞপ্তি: 
Advertising Rubel
Advertising Rubell
Advertising Rubel

মুক্তমত » চলতি সংবাদ

দুবাইয়ে শ্রীদেবীর মরদেহ গ্রহণ করেছিলেন কে এই আশরাফ থামারাসারি?

A- A A+

তিনিই ওই মৃতদেহ গ্রহণ করেছেন কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে। আর সেখানেই একটি ফোন নম্বরও দেওয়া হয়েছে সংযুক্ত আরব আমীরাতের আজমান শহরের বাসিন্দা আশরাফ নামের ওই ব্যক্তির।

শ্রীদেবীর পরিবারের বদলে তাঁর মৃতদেহ গ্রহণ করলেন কে এই আশরাফ? খোঁজ করে আরও কিছু তথ্য পাওয়া গেল আশরাফ থামারাসারির বিষয়ে।

সেই ফোন নম্বরের সূত্র ধরেই বৃহস্পতিবার সকালে যখন ফোন করলাম, প্রথমে লাইন ব্যস্ত। একটু পরে ওই নম্বর থেকেই মিসড্ কল।

পরিচয় দিতেই ওদিক থেকে সবিনয়ে জানালেন, “একজন ব্যক্তি মারা গেছেন। তাই নিয়ে পুলিশের কাছে এসেছি। পনেরো মিনিট পরে কথা বলবেন দয়া করে?”

ততক্ষণে আরও কিছু খোঁজ খবর করেছি এই আশরাফ থামারাসারির ব্যাপারে।

আজমান শহরের বাসিন্দা এই ব্যক্তি আদতে ভারতের কেরালার বাসিন্দা। সংযুক্ত আরব আমীরাতে একটা মোটর গ্যারেজ আছে তাঁর। কিন্তু বিদেশ-বিভূঁইতে থাকা ভারতীয়-বাংলাদেশী কিংবা পাকিস্তানী অথবা নেপালের মানুষের কাছে তিনিই আক্ষরিক অর্থে শেষ আশ্রয় – আশা-ভরসাস্থল।

যখনই ওদেশে অবস্থানরত কোনও বিদেশী মারা যান, এই আশরাফ থামারাসারির শরণাপন্ন হন অনেকেই – মরদেহ দেশে পাঠানোর ব্যবস্থা করতে।

“সালটা ২০০০। আমি এক বন্ধুকে দেখতে গিয়েছিলাম শারজার এক হাসপাতালে। বেরিয়ে আসার সময়ে দেখি দুজন ভারতীয় কাঁদছে,” বলছিলেন আশরাফ থামারাসারি।

“ওরা আমার দেশ কেরালার মানুষ। জিজ্ঞাসা করেছিলাম কী হয়েছে। ওরা বলল ওদের বাবা মারা গেছেন। আমি নিজে থেকেই ওদের সঙ্গে অনেক জায়গায় ঘোরাঘুরি করে ওদের বাবার মৃতদেহ দেশে পাঠানোর ব্যবস্থা করলাম। সেটাই শুরু।”

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।